Breast Cancer Awareness Campaign



Breast Cancer Awareness Campaign আমাদের প্রধান লক্ষ্য হল জনসচেতনতা সৃষ্টির মাধ্যমে এই মরণব্যাধির হার কমিয়ে আনা। কারন বেশিরভাগ ব্রেস্ট ক্যান্সার হাওয়ার প্রধান কারন হচ্ছে সচেতনতার অভাব। যখন এই ক্যান্সার সেল বারা শুরু হয় অনেকেই তখন বুঝতে পারে না যে এটা কেন হচ্ছে এবং কাকে বলবে।

 

সেক্ষেত্রে লেইসফিতা সাথে আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার সনাক্তকরণ ও চিকিৎসা কেন্দ্র একাত্মতা প্রকাশ করেছে। প্রতিটা লেস্ফিতা গহনা ক্রয়ে স্তন ক্যান্সার সচেতনতা প্রচারাভিযানের জন্য আমরা দান করবো অক্টোবর জুড়ে আইটেম বিক্রয় প্রতি ৫০ টাকা। এই চুক্তিটি 1 অক্টোবর থেকে 31 অক্টোবর পর্যন্ত চলবে।

প্রধানত স্তন ক্যান্সার সচেতনতা প্রচার করাই আমাদের প্রধান উদ্দেশ্য। অতএব, একটি অনলাইন ভিত্তিক ব্যবসা হিসাবে, আমরা এটি অনলাইনএ প্রচার করব।

 

আমরা একটি কোম্পানী হিসাবে, আহসানিয়া মিশন এর সাথে যতটুকু সম্ভব সহযোগিতা করে যাব। এই অভিযানের পাশাপাশি, আমরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে আহসানিয়া মিশনের দান কর্মসূচিও প্রচার করব। আমাদের ক্লায়েন্ট যারা একটি বড় দান করতে চান তারা আমাদের সাথে আলাদাভাবেও যোগাযোগ করতে পারেন। লেইস্ফিতা একটি স্টার্টআপ কোম্পানি হিসাবে, এই কাজ করতে পারাটা আমাদের কাছে অন্যতম সেরা মুহূর্ত। যদিও, ভবিষ্যতে, আমরা এই ধরনের চুক্তির মাধ্যমে এবং আহসানিয়া মিশনের সাথে কাজ করতে চাই।

 

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন (ডাব্লুএইচও) এর গবেষণায় বলা হয়, দেশের মোট ক্যান্সারে আক্রান্ত মহিলাদের শতকরা 16 ভাগ স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত। স্তন ক্যান্সার থেকে দেশে নারীর মৃত্যুহারের পরিপ্রেক্ষিতে ডাব্লুএইচও দ্বিতীয় স্থান পেয়েছে।

 

ঢাকা আহসানিয়া মিশন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ড। লুৎফর রহমান কিছুদিন আগে নগরীর আহসানিয়া ক্যান্সার হাসপাতালের আয়োজিত মাসিক আন্তর্জাতিক স্তন ক্যান্সার সচেতনতা কর্মসূচি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। ক্যান্সার বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক মাহবুবুল আলম বলেন, দেশে 50 বছরেরও বেশি বয়সী তিন-চতুর্থাংশ নারী স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত। অবিবাহিত মহিলারা স্তন ক্যান্সারের ঝুঁকি বেশি, তবে প্রাথমিক পর্যায়ে এটি সনাক্ত হলে এটি সম্পূর্ণরূপে নিরাময় করা যেতে পারে, জাতীয় অধ্যাপক ড। এমআর খান ডা।

সার্জিকাল অনকোলজিস্ট প্রফেসর হারন-অ-রশিদ ২0 বছর পর বিয়ে করার পরামর্শ দেন এবং স্তন ক্যান্সার এড়াতে 30 বছর আগে প্রথম শিশুর গ্রহণ করার পরামর্শ দেন।

আহসানিয়া মিশন ক্যান্সার ডিটেকশন সেন্টার ও হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব।) সৈয়দ ফজলে রহিম অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।

বিচারপতি ব্যারিস্টার রফিকুল হক, আইন প্রণেত্রী এম এ জব্বার, শিল্পী পারভীন মুশতরী ও হাসপাতালের উপদেষ্টা মোহাম্মদ আলী উপস্থিত ছিলেন।

সচেতনতা কর্মসূচির অংশ হিসেবে, হাসপাতালটি গতকাল অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া অক্টোবরে সকাল 9 টা থেকে দুপুর 2 টা পর্যন্ত স্তন ক্যান্সারে বিনামূল্যে পরামর্শ প্রদান করতে শুরু করেছে।

স্তন ক্যান্সার সংক্রান্ত কোনও তথ্যের জন্য লোকেরা 01718594682 এবং 01712103689 এ যোগাযোগ করতে পারে।

এই জন্য,  সচেতনতা প্রোগ্রাম হতে হবে বিভিন্ন মাধ্যমে পরিচালিত, সমন্বয় প্রচেষ্টার মাধ্যমে যেখানে সরকার ও বেসরকারি সরকার সংগঠন নিয়োজিত। বিশেষ হিসাবে তার ঠিকানা অতিথি, প্রতিমন্ত্রী ডা নারী ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক শিরীন শারমিন ড চৌধুরী বলেন, ভয়ঙ্কর হত্যাকারী এর বার্তা রোগ স্তন ক্যান্সার উচিত এ নারীদের পৌঁছাতে তৃণমূল স্তর। যদি সনাক্ত করা হয় একটি প্রাথমিক পর্যায়ে, এই ক্যান্সার নিরাময় করা যাবে।